Daily Frontier News
Daily Frontier News

“মানবাধিকার সর্বজনীন, কাউকে বাদ দিয়ে নয়”

 

 

স্টাফ রিপোর্টার :-

 

“মানবাধিকার সর্বজনীন, কাউকে বাদ দিয়ে নয়” এই স্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশের হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীর মানবাধিকার ও ন্যায় বিচারের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি (বন্ধু) আজ ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ তারিখে, সিলেট নগরীর রোজ ভিউ হোটেলের সম্মেলন কক্ষে একটি বিভাগীয় পর্যায়ের পরামর্শক সভা আয়োজন করে। উক্ত আয়োজনের সহযোগিতায় ছিলেন ক্রিশ্চিয়ান এইড ও ইউনাইটেড নেশনস ডেমোক্রেসি ফান্ড। এবং স্থানীয় পর্যায়ে আয়োজকের ভূমিকা পালন করে হিজড়া যুব কল্যাণ সংস্থা, সিলেট।
উক্ত আয়োজনের বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন – মোঃ মাহবুবুর রহমান, জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সিলেট। মোঃ আলাউদ্দিন, উপপরিচালক, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, সিলেট। নিবাস রঞ্জন দাশ, উপপরিচালক, জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়, সিলেট।
সভায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্ত রাখেন আঞ্জুম নাহিদ চৌধুরী, প্রকল্প ব্যবস্থাপ- জেন্ডার ও সোশ্যাল ইক্লুশন, ক্রিশ্চিয়ান এইড। উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন, উম্মে ফারহানা জেরিফ কান্তা, পরিচালক- পলিসি এ্যাডভোকেসী ও হিউম্যান রাইট, বন্ধু।

পরামর্শক সভায় আদিবাসী, দালিত, হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিরা তাদের দুদর্শা ও বৈষ্যমের বিষয় গুলো তুলে ধরেন। এছাড়াও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর ক্ষমতায়ন ও বাংলাদেশের উন্নয়ন প্রক্রিয়া সক্রিয় অংশগ্রহন প্রকল্পের কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী মুজিব উল্যাহ্‌ তার বক্তব্য জানান, “বন্ধু”র নেতৃত্ব ব্লাস্ট, নাগরিক উদ্যোগ ও ওয়েভ ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় সিলেট বিভাগে “বন্ধু” ২৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি “ লিভ নো ওয়ান বিহাইন্ড” কমিটি তৈরি করেছে, যেখানে রয়েছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সিলেট চেম্বার অফ কর্মাসের প্রতিনিধি, ইউনিয়ন ও জেলা পর্যায়ের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, সংবাদিক, আইনজীবী, শিক্ষক, দলিত, আদিবাসী, হিজড় ও ট্রান্সজেন্ডার প্রতিনিধিবৃন্দ। “ লিঙ্গ বৈচিত্র্যময় জনগোষ্ঠীর ন্যায় বিচারে প্রবেশাধিকার ও আইনী সহয়তা প্রকল্পের সমন্বয়কারী জোবদাতুল জাবেদ জানান বাংলাদেশের হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীর সদস্যরা তাদের লিঙ্গ পরিচয়ের কারনে পৈতৃক সম্পত্তি হতে বঞ্চিত হচ্ছে। বন্ধু হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীর মানুষদের ন্যায় বিচারে প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করার জন্য আইন আলাপের মাধ্যমে সেবা প্রদান করে যাচ্চে ২০১৩ সাল থেকে। এছাড়াও তারা জাতীয়, বিভাগীয় ও স্থানীয় পর্যায়ের সরকারী, বেসরকারী ও সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে নিয়মিত এ্যাডভোকেসী সভার আয়োজন করছেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য মোঃ মাহবুবুর রহমান বলেন, আমাদের সকলের উচিত হিজড় ও ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীর মানুষের জীবিকা ও কর্মসংস্থান নিশ্চিত করণের মধ্য দিয়ে তাদের কে সমাজের মূলস্রোতধারার সাথে সম্পৃক্ত করা। এছাড়াও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশের কৃষিখাতে হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডার মানুষের সম্পৃক্তার প্রতি তিনি গুরুত্বারোপ করেনে। মোঃ আলাউদ্দিন বলেন, সমাজের আদিবাসী, দলতি, হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের জন্য উক্ত জনগোষ্ঠীর মানুষদের স্বতঃপ্রনোদিত হয়ে কাজ করতে হবে। নিবাস রঞ্জন দাশ তার বক্তব্য বলেন, হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীর সদস্যদের পরিচয়ের সংজ্ঞাগত জটিলতার কারনে তারা অনেক সেবা হতে বঞ্চিত হচ্ছেন। এই জটিলতা দূর করা সম্ভব হলে, হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডার ব্যক্তিদের সমাজসেবা অধিদপ্তরের আওতায় সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমে আরো ব্যাপক ভাবে অংশগ্রহন নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

Daily Frontier News