Daily Frontier News
Daily Frontier News

আওয়ামী লীগ নেতা অজয় সরকারের বহিস্কারাদেশ বাতিল হওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীদের আনন্দ মিছিল- মিষ্টি বিতরন

 

 

(শাহ্ হিরো খুলনা জেলা প্রতিনিধি ?

 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ খুলনা জেলা শাখার তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক জাতীয় সংসদের ১০৩ খুলনা ৫ আসনের সংসদ সদস্য পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী জননন্দিত নেতা অজয় সরকারের বিরুদ্ধে খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ কতৃক গৃহিত সাময়িক বহিস্কারাদেশ জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বাতিল হওয়ায় ডুমুরিয়া-ফুলতলাসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে মিষ্টি বিতরন ও আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। গত ১৬ মার্চ তার বহিস্কারাদেশ বাতিল হওয়ার খবর শুনতেই ইউনিয়ন ও গ্রাম পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা আনন্দ ও উচ্ছাস প্রকাশ শুরু করেন। তার তখন থেকেই জেলার বিভিন্ন প্রান্তে এই মিষ্টি বিতরন কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে।

জানাগেছে মনগড়া অভিযোগ এনে গত ১৭ ডিসেম্বর তড়িঘড়ি করে অজয় সরকারের অনুপস্থিতিতে কোন প্রকার আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ না দিয়েই তাকে সাময়িক বহিস্কার করে ৭দিনের মধ্যে কারন দর্শানোর নোটিশ দেয় খুলনা আওয়ামী লীগ। অজয় সরকার যথাসময়ে এই নোটিশের জবাব দেন এবং উপরন্ত তিনি এবিষয়ে দলীয় সভাপতি বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি আকর্ষন করেন। জানাগেছে দলীয় সভানেত্রীর নির্দেশেই অজয় সরকারের বিরুদ্ধে খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের আনিত অভিযোগ গ্রহন করেনি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ।

উল্লেখ্য আওয়ামী লীগের সর্বশেষ গঠনতন্ত্রে বলা হয়েছে সংগঠনের জেলা শাখার পদাধিকারী কোন নেতাকে বহিস্কার করতে গেলে কেন্দ্রকে অবহিত করা প্রয়োজন। কারন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতিটি জেলার নেতা নিযুক্ত হন দলীয় সভাপতি বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদন সাপেক্ষে। কিন্ত অজয় সরকারকে বহিস্কার করার ক্ষেত্রে খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ গঠনতান্ত্রিক প্রক্রিয়া অনুসরন করেনি। সর্বপরি দলীয় গঠনতন্ত্রে আরও বলা হয়েছে চুড়ান্ত বহিস্কার করতে হলে জেলা শাখা কতৃক আনিত বহিষ্কার প্রস্তাব কেন্দ্র তদন্ত করে সত্যতা পেতে হবে, নতুবা পরবর্তী তিন মাসের মধ্যে জেলার বহিস্কার প্রস্তাব বাতিল বলে গন্য হবে ।

এ বিষয়ে অজয় সরকারের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, তার জনপ্রিয়তায় ইর্শান্বিত হয়ে দলের মধ্যে থাকা কতিপয় রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ জেলার দায়িত্বশীল নেতাদের ভূল বুঝিয়ে তার বিরুদ্ধে এই ধরনের পদক্ষেপ গ্রহনে উৎসাহিত করেছেন। যদিও পরবর্তীতে তিনি নোটিশের জবাব দেন। অজয় সরকার মনে করেন তার যৌক্তিক জবাব ও তথ্য প্রমানে দলের জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সন্তুষ্ট হয়েছেন। এবং তিনি ভিত্তিহীন অভিযোগের দায় থেকে মুক্তি পেয়েছেন। এ বিষয়ে তিনি আওয়ামী লীগ সভাপতি বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা শ্রদ্ধা প্রকাশ করেছেন।

Daily Frontier News