Daily Frontier News
Daily Frontier News

কুমিল্লার দেবীদ্বারে ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে ৪ টি বসত ঘরে হামলা,ভাংচুর আহত ১

 

 

মোঃ বিল্লাল হোসেন,দেবীদ্বার প্রতিনিধিঃ–

 

 

 

কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার রাজামেহার ইউনিয়নের ০৯ নং ওয়ার্ডের উখারী গ্রামে গত ৩০ অক্টোবর রাত আনুমানিক ১:১৫ মিনিটের সময় স্থানীয় ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নবী মেম্বারের নেতৃত্বে ১২/১৫ জনের একটি একটি সন্ত্রাসী দল বে আইনি জনতাবদ্ধ হয়ে ৪ টি বসত ঘরে হামলা, ভাংচুর ও পুরুষ শূন্য ঘরের দরজায় লাথি দিয়ে দরজা ভেঙে ঘরের ভেতর প্রবেশ করে একাধিক নারীকে লাঞ্ছিত এবং অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি হলে এবং স্থানীয় সাংবাদিকদের নজরে আসলে পরদিন ৩১ ই অক্টোবর সকালে উখারী গ্রামে সরেজমিনে গেলে এ ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়। সাংবাদিকরা তথ্য সংগ্রহের পর চলে আসার পরেই দুপুর আনুমানিক ১২:৩০ মিনিটের সময় আবারো অভিযুক্ত ৯ নং ওয়ার্ডের নবী হোসেন মেম্বারের নেতৃত্বে মোঃ আবু ইউসুফ, মোঃ জামাল হোসেন, মোঃ আবুল বাশারসহ আরো ৮/১০ জন সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে জুয়েল মিয়া নামক এক অটোরিক্সা চালককে মরহুম সোবহান কারীর মাদ্রাসার উওর পাশে রাস্তার উপর এলোপাথাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক কাটা রক্তাক্ত জখম করলে স্হানীয় আশেপাশের লোকজন গুরুত্বর আহত অটোরিক্সা চালক জুয়েল মিয়াকে দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত জুয়েল এর অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

আহত অটোরিক্সা চালক জুয়েল মিয়ার স্ত্রী জানান, আমার স্বামীকেসহ আমাকে আরো আগে ও একাধিকবার নবী মেম্বারের সন্ত্রাসী বাহিনীর নেতৃত্বে মারধর করেছিল। সেই কারনে আমার স্বামী জুয়েল বাদী হয়ে নবী মেম্বারকে ৩ নং আসামি করে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-৪ কুমিল্লায় একটি সি আর মামলা দায়ের করেন। মামলা নং সি আর- ৩৮৭/ ২২ ইং ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩৭৯/৩০৭/৩৫৪/১০৯ দঃবি সেই মামলাটি বিজ্ঞ বিচারক ওসি দেবীদ্বার থানাকে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য আদেশ দেন। বর্তমানে মামলাটি দেবীদ্বার থানার এসআই মোঃ মিজানুর রহমানের কাছে তদন্তাধীন রয়েছে। আমার স্বামীকে মারধর করে আমাদের বসতঘরের সামনে নবী মেম্বার বেড়া দিয়ে আমাদেরকে অবরোধ করে রাখে।নবী মেম্বার প্রভাবশালী আর আমরা গরীব দেখে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। এলাকায় নবী মেম্বারের বিরুদ্ধে কেউ কোন কথা বলতে পারে না।

উখারী গ্রামের একাধিক ভোক্তভোগী, আবুল কালাম (ভুট্রু) ড্রাইভার, জহিরুল ইসলাম, কামাল হোসেন বলেন, নবী মেম্বার এলাকার মাদক কারবারি,জুয়াড়ী ও সন্ত্রাসীদের আশ্রয়-প্রশ্রয়দাতা। নবী মেম্বারের অত্যাচারে এলাকার নিরীহ জনগণ আজ দিশেহারা‌। ৩০ অক্টোবর দিবাগত মধ্যরাতে আমাদের বাড়িতে চাঁরটি বসতঘরে হামলা করে ঘর এবং ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে মহিলাদের লাঞ্ছিতসহ ঘরের ভিতরে সজ্জিত অনেক মূল্যবান মালামাল ভাংচুর করেছে। রাতে আমাদের চাঁরটি বসতঘরে হামলা করে ভাংচুর করার পরদিন দুপুরে অটোরিক্সা চালক জুয়েলকে মারধর করে গুরুত্বর রক্তাক্ত করে নবী মেম্বার। এর আগে ও তার বিরুদ্ধে অটোরিক্সা চুরির মামলা ও সন্ত্রাসী মামলাসহ একাধিক মামলা চলমান রয়েছে। আমরা এই নবী মেম্বারের সন্ত্রাসী কার্যকলাপের বিচার চাই।

উখারী গ্রামের শামছুল ইসলাম সর্দার বৃদ্ধ বায়োজৌষ্ঠ ব্যক্তি জানান,গত ১৭ ই আগষ্ট ও ১৮ ই আগষ্ট-২২ ইং তারিখে নবী মেম্বার ও তার বড় ভাই আবু ইউসুফ, আবুল বাশার, মাহাবুব, তুহিন এই পাঁচ জন মিলে চুলাশ বাজারের স্যানিটারী ব‌্যবসায়ী শামছুল ইসলাম সর্দারের দোকানের সামনে স্যানিটারী স্লেপ ও রিং ভাংচুর করলে নবী মেম্বার কে ১ নং আসামি করে ৫ জনের বিরুদ্ধে দেবীদ্বার থানায় একটি নন-জিআর মামলা নং-৮৮/২২ ইং ধারা- ৪২৭/৩২৩/৫০৬ দ্রঃবি রুজু হলে নবী মেম্বারসহ সকল আসামীর বিরুদ্ধে গ্ৰেফতারী পরোয়ানা জারি করেন বিজ্ঞ আদালত। পরে দেবীদ্বার থানা পুলিশ গ্ৰেফতারী পরোয়ানাভুক্ত নবী মেম্বার পালিয়ে গেলেও তার বড় ভাই আবু ইউসুফসহ আবুল বাশার নামক দুইজন আসামিকে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করলে আসামীরা জামিনে এসে অটোরিক্সা চালক জুয়েলসহ একাধিক ব্যাক্তিদের মারধর করে কিন্তু নবী মেম্বারের বিরুদ্ধে আইনের দারস্হ হওয়ার পরেও তাকে তার সন্ত্রাসী কার্যকলাপ থেকে থামানো যাচ্ছে না।

তাছাড়া ও বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-৪ কুমিল্লায় উখারী গ্রামের মৃত রাজ্জাক মাষ্টারের ছেলে মোঃ সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে ১৪ ই আগষ্ট ২২ ইং তারিখে অভিযুক্ত নবী মেম্বারসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে একটি মারামারির মামলা দায়ের করেন । মামলা নং সিআর – ৩৮৮/২২ ইং ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩০৭/৩২৬/৩৭৯/৫০৬ দঃবি অএ মামলাটি বিজ্ঞ আদালত ডিবি কুমিল্লাকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য আদেশ দেন। বর্তমানে মামলাটি ডিবি কুমিল্লায় তদন্তাধীন রয়েছে ।একই গ্ৰামের মৃত ইয়াছিন মিয়ার পুত্র মোঃ ইব্রাহিম খলিল বাদী হয়ে অভিযুক্ত নবী মেম্বার, মোঃ আবুল বাশার, মোঃ জামাল হোসেনসহ তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-৪ কুমিল্লায় আরেকটি মারামারির মামলা দায়ের করেন বলে জানা যায়।

তবে ৩১ ই অক্টোবর বিকেলে অভিযুক্ত নবী মেম্বার গংদের বিরুদ্ধে গত ৩০ ই অক্টোবর দিবাগত রাতে উখারী গ্রামের ০৪ টি বসতবাড়িতে হামলা,ভাংচুর, নগদ টাকা লুটপাটের ঘটনায় দেবীদ্বার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ৩১ ই অক্টোবর দুপুর ১২:৩০ মিনিটের সময়ে অটোরিক্সা চালক মোঃ জুয়েল মিয়াকে মারধর বিষয়ে চিকিৎসাধীন থাকায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান জুয়েল মিয়ার বাবা মোঃ জয়নাল আবেদীন।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত নবী মেম্বারের মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি এই ঘটনার বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে এড়িয়ে যান।

এ বিষয়ে জানতে দেবীদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমল কৃষ্ণ ধর বলেন, উখারী গ্রামের ০৪ টি বসতবাড়িতে হামলা,ভাংচুর, নগদ টাকা লুটপাটের ঘটনায় একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Daily Frontier News